Freelancing

কিভাবে বাংলাদেশে বহুল প্রতিক্ষিত FID / ফ্রিল্যান্সার আইডি তৈরি করবেন? বিস্তারিত!!

ফ্রিল্যান্সার আইডি কি এবং কেন?

ফ্রিল্যান্সার আইডি হল বাংলাদেশ সরকার ফ্রিল্যান্সার এবং অনলাইন কর্মীদের কাছে প্রদত্ত একটি পরিচয়পত্র। দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এই আইডি কার্ড প্রদানের উদ্যোগটি ফ্রিল্যান্সার এবং অনলাইন কর্মীদের সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা প্রদানের লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে। এটি ফ্রিল্যান্সার এবং অনলাইন কর্মীদের কর্মসংস্থান এবং আয়ের প্রমাণ হিসাবেও প্রদান করা হবে।

যোগ্যতা

ফ্রিল্যান্সার আইডি কার্ড পাওয়ার জন্য অবশ্যই নিম্নলিখিত যোগ্যতা থাকতে হবে –

  1. বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
  2. সর্বশেষ ১২ মাসে অনলাইনে কাজের মাধ্যমে ন্যূনতম $১০০০ উপার্জন করতে হবে।
  3. মার্কেটপ্লেস / ডাইরেক্ট ক্লায়েন্টের মাধ্যমে প্রাপ্ত চুক্তি / কাজের প্রমাণ সরবরাহ করতে পারতে হবে।
  4. ডিজিটাল পণ্যগুলির পরিষেবা / বিক্রয় করে প্রাপ্ত উপার্জন বৈধ হতে হবে।
  5. উল্লিখিত যোগ্যতার মানদণ্ডগুলির যে কোনও একটি রক্ষণাবেক্ষণে ব্যর্থতার ফলে আবেদন প্রত্যাখ্যান হতে পারে।

আবেদন প্রক্রিয়া

ফ্রিল্যান্সার আইডি পেতে যে কোনও ফ্রিল্যান্সারকে http://www.freelancers.gov.bd ভিজিট করতে হবে এবং একটি অনলাইন আবেদন ফর্ম পূরণ করে একটি আবেদন জমা দিতে হবে। আবেদনকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য, কাজ / উপার্জন সম্পর্কিত তথ্য এবং দক্ষতার দক্ষতা সম্পর্কিত প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করা হবে।

আপনার জাতীয় আইডি ব্যবহার করুন এবং অ্যাপ্লিকেশন শুরু করার আগে একটি প্রোফাইল পিকচার প্রস্তুত করুন।

একবার আবেদন জমা দেওয়ার পরে আবেদনকারীকে আবেদন ফি হিসাবে ১৫০০ টাকা প্রদান করতে হবে। অর্থ প্রদানের প্রক্রিয়া সম্পর্কিত বিবরণটি আবেদনকারীর মনোনীত ইমেল ঠিকানায় ইমেল করা হবে।

অর্থ প্রদান সম্পূর্ণ হওয়ার পরে যাচাইকরণ প্রক্রিয়াটি শেষ করতে ৭দিন সময় লাগবে। এই প্রক্রিয়া চলাকালীন কোনও মূল্যায়নকারী ইমেইল বা ভিডিও কলের মাধ্যমে কোনও আবেদনকারীর কাছে আরও তথ্য বা ইতিমধ্যে সরবরাহ করা তথ্যের স্পষ্টতার জন্য যোগাযোগ করতে পারে। মূল্যায়ন প্রক্রিয়াটির একটি অংশে একটি ভিডিও কল অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে যেখানে আবেদনকারীকে তার কম্পিউটার স্ক্রিনটি শেয়ার করতে এবং আবেদনে প্রদত্ত কিছু বিশদ যাচাই করতে বলা হতে পারে। সফল যাচাইয়ের পরে আবেদনকারীকে ইমেল / এসএমএসের মাধ্যমে অবহিত করা হবে।

আবেদনকারীরা তারপরে http://www.freelancers.gov.bd পোর্টালে লগইন করতে পারবেন এবং আইডি কার্ডটি দেখতে বা ডাউনলোড করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সার আইডির মেয়াদ

একবার কোনও অ্যাপ্লিকেশন অনুমোদিত হয়ে গেলে এবং ভার্চুয়াল ফ্রিল্যান্সার আইডি কার্ড জারি করা হলে তা ১২ মাসের জন্য বৈধ হবে। আবেদনকারী এই ১২ মাসের মধ্যে কার্ডের তথ্য (উদাহরণস্বরূপ আয়ের তথ্য) আপডেট করতে পারবেন। যে কোনও আপডেটের রিকোয়েস্ট করলে নতুন অ্যাপ্লিকেশন হিসাবে বিবেচনা করা হবে এবং অবশ্যই একই যাচাইকরণ প্রক্রিয়াটির মধ্য দিয়ে যেতে হবে। আপডেটের অনুরোধটিতে নতুন অ্যাপ্লিকেশনের সমান প্রসেসিং ফি রয়েছে।

কার্ড প্রদানের ১২ মাস পরে, আবেদনকারীকে তাদের তথ্য আপডেট করার জন্য অনুরোধ জানানো হবে। নতুন আপডেটের অনুরোধটি একটি নতুন অ্যাপ্লিকেশন হিসাবে বিবেচিত হবে এবং এটি অবশ্যই একই যাচাইকরণ প্রক্রিয়াটির মধ্য দিয়ে যেতে হবে। আপডেটের রিকোয়েস্ট করলে নতুন অ্যাপ্লিকেশনের সমান প্রসেসিং ফি দিতে হবে।

ফ্রিল্যান্সার আইডির জন্য কে আবেদন করতে পারবে

  • স্বতন্ত্র ফ্রিল্যান্সারঃ একটি ফ্রিল্যান্সার বা অনলাইন কর্মী যিনি নিজেই কাজ করেন।
  • ফ্রিল্যান্সার টিমের মালিকঃ একজন ব্যক্তি যিনি ফ্রিল্যান্সারদের একটি ছোট দল (১৫ সদস্য অবধি) পরিচালনা / পরিচালনা করেন।
  • ফ্রিল্যান্সার টিমের সদস্যঃ একজন ব্যক্তি যিনি একজন ফ্রিল্যান্সার দলের সদস্য। (আবেদনের আগে তার / তার দলের মালিকের অবশ্যই অনুমোদিত ফ্রিল্যান্সার আইডি থাকতে হবে)।

আপনার তথ্য কে দেখতে পারবে

আপনার গোপনীয়তাকে শীর্ষ অগ্রাধিকার দেয়া হবে এবং আপনি যাকে আপনার তথ্য অ্যাক্সেস দিতে চান তার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ আপনার হাতে থাকবে। যারা আপনার তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারবেঃ

  • আপনি।
  • তৃতীয় পক্ষ (ব্যাংক / বীমা সরবরাহকারীগণ) কেবল তখনই যখন আপনি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) কোড ব্যবহারের মাধ্যমে তাদের অ্যাক্সেসের অনুমতি দিবেন।
  • সুরক্ষা এবং সমীক্ষার উদ্দেশ্যে সরকারী সংস্থা। কেবল লিখিত অনুরোধের ভিত্তিতে সরবরাহ করা হবে।
  • আবেদন মুল্যায়নকারী শুধু যাচাইকরণের জন্য।

ফ্রিল্যান্সার আইডি কার্ড এবং ফ্রিল্যান্সার আইডি প্রোফাইল

ফ্রিল্যান্সার আইডি কার্ড হল ভার্চুয়াল কার্ড যা ফ্রিলান্সারের ছবি, নাম, পারদর্শিতা, এফআইডি নম্বর, ইস্যু বছর, ঠিকানা, জন্ম তারিখ এবং কিউআর কোডের মতো তথ্য থাকবে যা ফ্রিল্যান্সারের আইডি প্রোফাইলের একটি লিঙ্ক করা থাকবে।

ফ্রিল্যান্সার আইডি প্রোফাইলটিতে আবেদন প্রক্রিয়া চলাকালীন যাচাই করা সমস্ত তথ্য থাকবে। এই প্রোফাইলটি তখনই দৃশ্যমান হবে যখন ফ্রিল্যান্সার পোর্টালে লগইন করা হবে বা কিউআর কোডটি স্ক্যান করা হবে এবং একটি ওটিপি প্রবেশ করা হবে যা আবেদনকারীর মনোনীত ফোন নম্বরটিতে প্রেরণ করা হয়েছিল। কোনও পরিস্থিতিতে ফ্রিল্যান্সার আইডি প্রোফাইলটি নিজেকে ফ্রিল্যান্সারের অনুমতি না পেলে সর্বজনীনভাবে প্রদর্শিত হবে না।

আয় নির্ধারণ

অ্যাপ্লিকেশন চলাকালীন প্রদত্ত তথ্যের ভিত্তিতে মূল্যায়নকারী গত ১২ মাস থেকে সমস্ত ফ্রিল্যান্স এবং অনলাইন কাজের সাথে সম্পর্কিত অর্থগুলি যাচাই করবে। প্রতিটি আয়ের উত্স যাচাইযোগ্য হতে হবে। ফ্রিল্যান্সার প্রোফাইলে বিভিন্ন উত্স থেকে উপার্জনের মোট সঞ্চিতি দেখা যাবে। উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনি আপওয়ার্ক থেকে $১২০০০ এবং ফাইভার থেকে $৮০০০ ডলার অর্জন করেন তবে আপনার মোট উপার্জন $২০০০০ হিসাবে দেখানো হবে।

সরাসরি ক্লায়েন্টদের উপার্জনকে চুক্তি এবং লেনদেনের প্রমাণ যেমন ব্যাংক স্টেটমেন্ট, পেয়োনিয়ার স্টেটমেন্ট ইত্যাদি থাকতে হবে।

দক্ষতা মূল্যায়ন

একজন ফ্রিল্যান্সারের দক্ষতার লেভেল মার্কেটপ্লেস এবং মার্কেটপ্লেস ছাড়া অন্য উত্স থেকে প্রাপ্ত পর্যালোচনা এবং রেটিংয়ের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে। ফ্রিল্যান্সার প্রোফাইলে বিভিন্ন উত্স থেকে গড় রেটিংয়ের যোগফল দৃশ্যমান হবে। দক্ষতা মূল্যায়ন ক্ষেত্রে চলাকালীন প্রাসঙ্গিক দক্ষতা ও সাম্প্রতিক প্রশিক্ষণও বিবেচনা করা হবে।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সার আইডি তৈরি করবেন?

  1. প্রথমে https://freelancers.gov.bd/ এই সাইটে ভিজিট করুন। Apply Now এ ক্লিক করুন ও ফর্মটি সঠিকভাবে পূরণ করুন।
  2. নাম, ইমেইল, মোবাইল নম্বর, পাসওয়ার্ড দিয়ে ক্যপচা পুরন করে সাইন আপ ক্লিক করুন। আপনার ইমেইল এ Confirmation মেইল যাবে এবং Click here to verify your email এ ক্লিক করুন। ভেরিফাই হয়ে গেলে লগ ইন করুন।
  3. এরপর Freelancer ID তে ক্লিক করুন। এবার Apply Now এ ক্লিক করুন। আবার Apply Now এ ক্লিক করুন। এবার এই ফর্মটি পূরণ করার আগে আপনার মোবাইল নম্বরটি ভেরিফাই করে নিন।
  4. এরপর পুরা নাম, জন্ম তারিখ, জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর, এমেইল আইডি, মোবাইল নম্বর, জেলা, টিউনাল কোড, ঠিকানা, লিঙ্গ পূরণ করে Save and Next এ ক্লিক করুন। এই পেজের সকল তথ্য দিন। কি ধরনের একাউন্ট করতে চান, আপনার যে বিষয়ে অভিজ্ঞ সেটা লিখুন, কোন মার্কেট প্লেসে কাজ করেন সেটা দিন (এই লিস্টে না থাকলে এ টিক দিন এবং কিভাবে আয় করেন সেটা দিন), মার্কেট প্লেসের বাইরে অন্য কোনোভাবে আয় করে থাকলে টিক দিন, মার্কেট প্লেসের বাইরে অন্য কোনো প্লাটফর্মে কাজ করলে সেখানের রেটিং কত সেটা দিন, গত ১২ মাসের আয় কত সেটা দিন, অন্য কোন ভাবে ফ্রিল্যান্সার হিসাবে আয় করলে গত ১২ মাসের আয় কত সেটা দিন।
  5. Save and Next এ ক্লিক করুন এবং ওই পেজে সব তথ্য দিন। আপনার সম্পর্কে কিছু লিখুন, আপনার দক্ষতা কি সেটা লিখুন, আপনার দক্ষতার কোনো সার্টিফিকেট থাকলে সেটা লিখুন, আপনি কত বছর ধরে কাজ করছেন সেটা দিন, মার্কেট প্লেসের বাইরে অন্য কোনো প্লাটফর্মে কাজ করলে সেখানে কোনো রিভিউ পেলে সেটা লিখুন।
  6. আবার, Save and Next এ ক্লিক করুন। এবার আপনার ফর্মাল একটি ছবি সিলেক্ট করে Finish ক্লিক করার সাথে সাথে আপনার ইমেইলে পেমেন্ট করার লিঙ্ক পাঠিয়ে দিবে। আপনার মেইল চেক করুন। Please make payment for the application fee from here এখানে ক্লিক করুন।
  7. এবার ১৫০০ টাকা পেমেন্ট করতে হবে। আপনি যেকোনো ভিসা বা মাস্টারকার্ড দিয়ে পেমেন্ট করতে পারবেন। তা যদি না করতে চান তাহলে মোবাইল ওয়ালেট দিয়েও পেমেন্ট করতে পারেন।
  8. পেমেন্ট দেয়া হয়ে গেলে এখন অপেক্ষার পালা। আপনার সকল তথ্য ভেরিফাই করার পর আপনি পেয়ে যাবেন FID বা ফ্রিল্যান্সার আইডি।

ধন্যবাদ কস্ট করে পড়ার জন্য। আপনাদের উপকারের জন্য সামান্য চেষ্টা। কোনো ভুল হলে ক্ষমা করবেন।

সৌজন্যেঃ Trick Vault

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button

Adblock Detected

Hey Dear!! Thank you for visit on TuneBN. Please Disable your AD Blocker to continue browsing.